ইসলামপুরে গুলি চালানোর ঘটনায় বহিরাগতদের দুষলেন শুভেন্দু  l
ঘাটাল নিউজ ওয়েব ডেস্ক, ২৮ সেপ্টেম্বর :
ইসলামপুরে ছাত্রদের ওপর গুলি চালানোর ঘটনায় বিহারের লোক জড়িত বলে অভিযোগ করলেন পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী l তিনি বলেন বিহার থেকে  ভাড়া করে আনা লোক পুলিশের ওপর পাথর ছুড়েছে, সরকারি বাসে আগুন লাগিয়েছে, ভাঙচুর করেছে ও সাধারণ মানুষের ওপর গুলি চালিয়েছে। ঘটনায় যে ৫ জন ধরা পড়েছে তারা সকলেই বিহারের। শুক্রবার ঝাড়গ্রামের দুবড়াতে নিহত তৃণমূল নেতা চন্দন ষড়ঙ্গীর স্মরণ সভায় যোগ দিতে এসে একথা বলেন পরিবহণ মন্ত্রী।  তিনি বলেন, ইসলামপুরের ঘটনায় ডাকা বন্ধে আমি ৪ হাজার গাড়ির চালককে হেলমেট পরতে দিয়েছিলাম ওইসব দুষ্কৃতীরা গণ্ডগোল বাধাবে জেনে। পরিবহন মন্ত্রী বলেন জামবনিতে তৃণমূল নেতা চন্দন ষড়ঙ্গী খুনে অভিযুক্ত তাপস মল্লিকরা সিপিএমের হার্মাদ। এরা খুন সন্ত্রাস করে তৃণমূলকে ভয় দেখাতে চাইছে। কিন্তু আমরা ভয় পাওয়ার লোক নই। এদিন নিহত তৃণমূল নেতার পরিবারের হাতে তিন লক্ষ টাকা আর্থিক সাহায্য তুলে দেওয়া হয়।, পাশের রাজ্য বিহার থেকে লোক ভাড়া করে এনে পুলিশে ওপর পাথর ছুড়েছে, সরকারি বাসে আগুন লাগিয়েছে, ভাঙচুর করেছে, সাধারনের ওপর গুলি চালিয়েছে। পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, আমি দেখেছি নেতাই গণহত্যা ২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি। আমি নিজে দাঁড়িয়ে থেকে নিহতদের লাশ দাহ করেছি। আমি জানি ওই লুম্পেনরা গণ্ডগোল বাধাবে। আমি দেখেছি অনুজ পাণ্ডে, অনিল মাহাতর মত মস্তানদের। এর আগে এখানে কমরেড প্রশান্ত দাস যার বাইরে গেরুয়া, ভেতরে লালা তার রাঙ্গা চোখ। আমি ভয় পাইনি। আমি ভয় পাওয়ার লোক নই। লরির ওপরে দাঁড়িয়ে আমি সভা করে গেছি। ২০১০ সালে হার্মাদ, মাওবাদীরা ২৮৫ জনকে খুন করেছে। ২০১১ সালেও তারা খুন করেছে। বাবু বোস , লালমোহন মাহাত, রবীন্দ্রনাথ মিশ্র কে খুন করেছে এরা। তখন বলেছিলাম আর খুন হতে দেব না। ২০১২ সালে আর খুন হয়নি। বন্ধের দিন এরা ৫৫ টি বাস ভেঙেছে, আগুন ধরিয়েছে, এরা চালাবে দেশ। আমাদের এই রাজ্য সীমান্ত এলাকায় হওয়ার জন্য ঝাড়খণ্ড , ওড়িশার সুপারি কিলাররা তৃণমূল নেতা কর্মীদের খুন করছে। আমাদের আরও সজাগ থাকতে হবে। তাপস মল্লিক এরা সিপিএমের হার্মাদ। এরা খুন সন্ত্রাস করে তৃণমূলকে ভয় দেখাতে চাইছে। আমরা ভয় পাওয়ার লোক নই। আপনারা বলতে পারেন ১৯৮৪ সাল থেকে কোন মুখমন্ত্রী জঙ্গল মহলে রাত্রি যাপন করেছেন। তার একমাত্র উদাহরণ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ বাংলার প্রতিটা ঘরে সরকারের কিছু না কিছু প্রকল্পের সাহায্য এসেছে। কন্যাশ্রী থেকে রূপশ্রী সব ক্ষেত্রেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here