দিন কয়েক আগে কেশপুরে গিয়ে তৃণমূল কর্মীদের ‘ রাস্তায় ফেলে কুকুরের মতো মারার কথা বলেছিলেন ঘাটাল লোকসভার বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষ | মঙ্গলবার সবং এর সভা থেকে এবিষয়ে দলের কর্মী সমর্থকদের কাছে নিজের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে এই কেন্দ্রের তৃণমূল তারকা প্রার্থী দেব ওরফে দীপক অধিকারী বলেন , ‘ অশিক্ষিত লোক যখন অশিক্ষিতের মতো কথা বলেন তখন তাঁর নাম হয় ভারতী ঘোষ | ‘ ভোটের প্রচার শুরুর থেকেই তিনি তাঁর বিরোধী রাজনৈতিক দলের প্রার্থীদের সৌজন্যতা দেখিয়ে আসছেন | টুইট করে সকলকে শুভেচ্ছাও জানিয়েছিলেন | পুলিশ কর্তা থেকে বিজেপি প্রার্থী হওয়া ভারতী ঘোষ যেভাবে কুকথা বলছেন এটা বাংলার সংস্কৃতিতে মানায় না তাও জানান দেব |

মঙ্গলবার সবং বিধানসভার ভেমুয়া , বিকলবাড় , বলপাই , তেমাথানি বাজারে সভা করেন দেব | সভাগুলিতে ছিলেন মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী মানস ভুইঁয়া , সবং এর বিধায়ক গীতারানি ভুইঁয়া , তৃণমূল ব্লক সভাপতি প্রভাত মাইতি , যুব তৃণমূল ব্লক সভাপতি আবু কালাম বক্স , অমূল্য মাইতি |

তিনি বরাবরই কুৎসা , অপপ্রচার ও ব্যক্তি আক্রমনের রাজনীতি থেকে দূরে থেকেছেন |
বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন, ‘ অন্য কাউকে ছোট করে নিজে বড় হওয়া যায় না। কারো গায়ে কাদা ছুঁড়লে নিজে পরিষ্কার থাকা যায় না।’ বিজেপিকে কটাক্ষ করে বলেন, ‘ আজকের রাজনীতি হয়ে গেছে আপনারা ভোট দিলে রাম মন্দির তৈরি হবে। আপনারা হিন্দু হলে এই দলকে ভোট দেবেন । আপনারা মুসলিম হলে ওই দলকে ভোট দেবেন। আজকের রাজনীতি হয়ে গেছে সেনা জওয়ানদের নিয়ে।যা সত্যিই লজ্জাকর | কিন্তু গরিব মানুষদের নিয়ে কেউ ভাবছে না।’
তিনি আবেদন করেন, ‘ এই ধর্মের রাজনীতি থেকে বেরোতে হবে।ধর্মীয় বিভেদ সৃষ্টি করেই ২০০ বছরের বেশি ব্রিটিশরা রাজত্ব করেছিল। ধর্ম বা জাতপাত নয় রাজনীতি হোক উন্নয়ন নিয়ে | ‘ যাঁরা গত ৫ বছর ধরে দেশ শাসন করেছে তাঁরা যেভাবে ধর্মের ভিত্তিতে , জাতপাতের ভিত্তিতে , বিভেদের রাজনীতিকে কাজে লাগিয়ে ভোটের বৈতরণী পার হতে চাইছেন তা না পসন্দ দেব এর |

সভা থেকে তাঁর বার্তা , ‘ রামন্দিরের থেকেও ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান , কাঁসাই নদীর ওপর লোয়াদা সেতু , বালিচকে রেল উড়ালপুল বেশি দরকার | সমাজের সব শ্রেণীর মানুষের এতে উপকার হবে | ‘ বিজেপির দেশ শাসনের নীতির সমালোচনা করে তাঁকে বলতে শোনা যায় , ‘ যে সরকার গরিবের মাথার ওপর ছাদ দিতে পারে না , কৃষকের ফসলের দাম দিতে পারে না , বেকারের হাতে কাজ দিতে পারে না সেই সরকার থেকে লাভ কি ?

দেশের মানুষ আগেই উপলব্ধি করেছেন যে বিজেপির আচ্ছে দিনের শ্লোগান , নোট বন্দি , জিএসটি চাপানো সকলের মুখে হাসি কেড়ে নিয়েছে | তা জানিয়ে দেব তথ্য তুলে ধরেন , ‘ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বাংলার প্রতিটি মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়েছেন | গীতাঞ্জলি প্রকল্পে ৪০ লক্ষ মানুষকে নতুন বাড়ি দিয়েছেন | মাথায় আড়াই লক্ষ কোটি টাকার দেনা নিয়েও উন্নয়নে সব রাজ্যকে ছাপিয়ে এগিয়ে চলেছে বাংলা | ‘ সারাদেশে যেখানে এখনো ৩ কোটি বাড়িতে বিদ্যুৎ পৌঁছায়নি সেখানে বাংলায় বিদ্যুৎহীন কোন বাড়ি নেই |
শ্রোতাদের উদ্দেশ্যে বলেন , ‘ আপনারা আওয়াজ তুলুন , কেন উন্নয়নের নিরিখে ভোট হবে না ? কেন জাতপাতের , ধর্মের , বিভেদের মাপকাঠিতে ভোট হবে ?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here