ঘাটাল নিউজ ডেস্ক, মেদিনীপুর, ২৫ এপ্রিল : তাঁদেরকে কেউ বলেন মহিলা ব্রিগ্রেড। কেউ বলেন মুখ্যমন্ত্রীর নারীশক্তি। তাঁরা হলেন ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রের ৪ বিধানসভার মহিলা বিধায়ক। সবং এর গীতারানি ভুইঁয়া, দাসপুরের মমতা ভুইঁয়া , কেশপুরের শিউলি সাহা , ডেবরার সেলিমা খাতুন। ৪ জনই জোরকদমে প্রচার চালাচ্ছেন যাতে এবারে তৃণমূলের তারকা প্রার্থী দেব ওরফে দীপক অধিকারীর মার্জিন ২ লক্ষ ৬০ হাজার থেকে বেড়ে ৩ লক্ষ ছাড়িয়ে যায়। এজন্য কোমর বেঁধে নেমে পড়েছেন চারমূর্তি। সকাল থেকে রাত কখনো পায়ে হেঁটে বুথে বুথে প্রচার , কখনো বাড়ি বাড়ি প্রচার , কখনো কর্মিসভা আবার কখনো প্রার্থীকে নিয়ে জনসভা বা রোড শো। সবকিছুতেই সাবলীল তাঁরা। মহিলা বিধায়ক থাকায় প্রচারে বেশি করে ঝাঁপাচ্ছেন এলাকার মহিলারা। মনোবল বাড়ছে, বাড়ছে ভোটের অঙ্ক। নিপাট গৃহবধূই হোক অথবা কলেজ পড়ুয়া কন্যাশ্রী নির্দ্বিধায় পা মেলাচ্ছেন গীতা , সেলিমা , ছায়া , মমতার মিছিলে ও সভাতে।
গীতারানির স্বামী ডাঃ মানস ভুইঁঞা এবার মেদিনীপুর কেন্দ্রের প্রার্থী। তিনি আগলে রেখেছেন সবং বিধানসভা এলাকাকে। লক্ষ্য গতবারের থেকে দেব এর মার্জিন বাড়ানো। ২০১৪ সালে কেশপুরে দেব যে পরিমান ভোট পেয়েছিলেন এবার তা আরও বাড়বে বলে দাবি শিউলি সাহার। দাসপুরের চিত্রটাও একই। দিনরাত এক করে প্রচার চালিয়ে মমতা ভুইঁঞা একটাই কথা বলছেন দেবের মার্জিন বাড়াতে হবে। ডেবরার সেলিমা খাতুন প্রচারে পেয়েছেন
কলেজ পড়ুয়াদের। লক্ষ্য দেবের মার্জিন বাড়ানো।
কেন তাঁরা দেব এর মার্জিন বাড়াতে চাইছেন এই প্রশ্নের উত্তরে ৪ বিধায়কের উক্তি , ‘ দেব ভালো মানুষ। কাজের মানুষ। ঘাটালের জন্য অনেক করেছেন। মাস্টার প্ল্যান , লোয়াদা সেতু সহ আরও অনেক উন্নয়নমূলক কাজ উনি করবেন | ‘
তাঁরা আরও একটি বার্তা দিতে চাইছেন তা হলো ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থী হয়েছেন দুর্নীতিগ্রস্থ পুলিশ অফিসার ভারতী ঘোষ। তিনি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার এসপি থাকাকালীন সোনা চুরি থেকে বালি চুরি সবকিছুতেই অভিযুক্ত। সিআইডি তাঁকে জেরা করছে। চার্জশিটও দিয়েছে। তাঁদের কথায় , ‘ দেবের ভোটের মার্জিন বাড়িয়ে একজন খারাপ মহিলাকে মুখের মতো জবাব দিতে চাইছি। ‘

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here