রামনবমী উৎসবকে ধর্মীয় জিগির তুলে অস্ত্র মিছিলের পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ায় বিপন্ন হচ্ছে বাংলার সংষ্কৃতি |
শনিবার দুপুরে শিলিগুড়ির বাঘাযতীন ময়দান থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি যখন বলছেন , ‘ ধর্ম মানে হিংসা নয় | ধর্ম মানে যুদ্ধ নয় | ধর্ম মানে মানবিকতা | গদা দিয়ে কার মাথা ফাটাবেন ? তরোয়াল দিয়ে কার গলা কাটবেন ? ‘ ঠিক তখনই তরোয়াল হাতে খড়্গপুরের তালবাগিচা ও সেটেলমেন্ট এলাকায় রামনবমী উৎসবে সামিল হলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ | সকাল থেকে দুপুর খড়্গপুরের বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে দেখলেন রামনবমী পুজো , সন্ধ্যায় যে আখড়া ( সশস্ত্র শোভাযাত্রা ) বেরোবে তার প্রস্তুতি | বিকেলে মেদিনীপুরের টিভি টাওয়ার মাঠ থেকে বাইক মিছিলে যোগ দেন | ঝান্ডা বেঁধে শ্লোগান দিয়ে কয়েকহাজার বাইক মিছিল মেদিনীপুরের বিভিন্ন এলাকায় ঘোরে | একটি ঘোড়ার গাড়িতে দাঁড়িয়ে রোড শো এর আদলে কখনো হাত নেড়ে , কখনো প্রণাম জানিয়ে নিজের ভোট প্রচারও সেরে নেন |
তিনি একদিকে বিজেপির রাজ্য সভাপতি আবার লোকসভা ভোটে মেদিনীপুর কেন্দ্রে প্রার্থী | লাগু হয়ে গেছে আদর্শ নিবাচন বিধি | রামনবমী মিছিলকে কেন্দ্র করে প্রার্থী তা লঙ্ঘন করছেন কিনা তা দেখতে হাজির ছিলেন নির্বাচন কমিশনের ফ্লায়িং স্কোয়াড টিম | তাঁরা বাইক মিছিলের ছবি , দিলীপ ঘোষের বক্তব্য , শ্লোগান , দলীয় পতাকা রয়েছে কিনা সব ভিডিও ক্যামেরায় নথিভুক্ত করেন | যে কোনো রকম গোলমাল ঠেকাতে ছিল পুলিশ বাহিনী |
মিছিলের ঝাঁঝ বাড়াতে তাঁকে বলতে শোনা যায় , ‘ নির্বাচন আসবে ,অন্য কিছু আসবে এরজন্য উৎসব বন্ধ করা যায় না | যখন নির্বাচন কমিশন ছিল না , রাজনৈতিক দল ছিল না এরও আগে থেকে রামনবমী উৎসব পালিত হয়ে আসছে | ‘
রামমন্দিরের আন্দোলনকে গ্রামে গঞ্জে ছড়িয়ে দিতে পেরে এর আখেরে লাভ বিজেপি যে ঘরে তুলছে তা স্বীকার করে দিলীপ বাবু জানান ,’ রামন্দির আন্দোলনের আবেগ , পরম্পরার ফলে বাংলাতেও রামভক্তির প্রচার বেড়েছে | রাম সকলের | চাপে পড়ে এখন তৃণমূলকেও রামনবমী পালন করতে হচ্ছে | দুদিন পরে সিপিএম করবে | যে সরকার বাধা দেবে সেই সরকার আর থাকবে না | ‘
রাজ্য সরকার বারবার বলে আসছে অস্ত্র নিয়ে কোনো মিছিল করা যাবে না | তবে সরকারের এই সিদ্ধান্তকে যে তিনি কোনো গুরুত্ব দেননা তা শনিবার আরও এরকবার দেখা গেল | শনিবার খড়্গপুরের তালবাগিচায় রাম নবমীর পুজোর সময় অস্ত্র হাতে তুলে নিলেন দিলীপ ঘোষ | তা চারদিকে ঘুরিয়ে দেখালেন | কর্মী সমর্থকদের আবদার মেটাতে ছবি তুললেন | তিনি প্রার্থী | ভোটের প্রাক্কালে এভাবে অস্ত্র হাতে তুলে নেওয়া যায় কিনা এ প্রশ্ন শুনে ঝাঁঝালো সুরে উত্তর দিলেন , ‘ আখড়া কমিটিতে এসে খালি রসগোল্লা খাব আর হাতিয়ার ধরব না তা হয় নাকি ? নিজেই এর ব্যাখ্যা দেন , ‘ অস্ত্র নিয়ে রাস্তায় ঘোরাফেরা করা বেআইনী | অনুমতি সাপেক্ষে আখড়ার শোভাযাত্রায় অস্ত্রের ব্যবহার চলে আসছে | প্রতিবছর রামনবমী শোভাযাত্রায় যেভাবে অস্ত্র থাকে এবারেও তা থাকবে | প্রশাসনের অনুমতি নিয়েই সব হচ্ছে | ‘
তৃণমূলকে হুমকি দিয়ে বলেন , ‘ কেউ বাধা দিলে এর ফল ভুগতে হবে | মুখমন্ত্রীর ভয় হচ্ছে তাই বন্ধ করতে চাইছেন | ‘
এদিন রামনবমীর বাইক মিছিল থেকে শোভাযাত্রা সবেতেই নেতৃত্ব দিতে দেখা গেছে আরএসএস , বিশ্বহিন্দু পরিষদ , হিন্দু জাগরণ মঞ্চের নেতাদের |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here