সোমা চক্রবর্তী, ঘাটাল নিউজ, ২৬ মার্চ : তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় এলে স্থানীয় স্তরে বেশকিছু উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
শুক্রবার ঘাটাল মহাকুমার বেলেঘাটা এবং চন্দ্রকোনা তে তৃণমূল প্রার্থীর সমর্থনে মুখ্যমন্ত্রী জনসভা করেন।এদিন তিনি হেলিকপ্টার থেকে হুইল চেয়ারে বসে সভামঞ্চে আসেন।

ঘাটাল মহকুমার বহু যুবক বাইরের রাজ্য সোনার কাজ করেন।তাদের আর বাইরে যেতে হবে না কারণ তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় এলে দাসপুরের সোনার ক্লাস্টার করা হবে।
ঘাটাল মাস্টারপ্ল্যান বাস্তবায়িত না হওয়ার জন্য তিনি কেন্দ্রীয় সরকারকে দোষারোপ করেন।ঘাটাল মাস্টারপ্ল্যানের ছাড়পত্র কেন্দ্রীয় সরকার দিচ্ছে না বলে তিনি অভিযোগ করেন।এই প্রকল্পের ছাড়পত্র যদি কেন্দ্রীয় সরকার দেয়, তাহলে রাজ্য সরকার মাস্টারপ্ল্যান করবে বলে তিনি প্রতিশ্রুতি দেন। ঝুমী নদীতে ব্রিজ তৈরি হওয়ার কথা বলেন।
বিজেপি টাকা ছড়িয়ে বাইরে থেকে গুন্ডা নিয়ে ভোট করবে বলে তিনি সতর্ক করে দেন। এমনকিকোন খাবার না খান সেকথাও মুখ্যমন্ত্রী বলেন। কারণ তিনি মনে করেন ওই বিরিয়ানি তে ড্রাগ থাকতে পারে।
ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট অর্থাৎ আই এস এফ সিপিএম কংগ্রেস এবং বিজেপির কাছ থেকে টাকা নিয়ে সংখ্যালঘুদের ভোট কাটবে বলে মুখ্যমন্ত্রী বলেন।
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন ,তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় এলে কৃষকদের ভাতা বাড়িয়ে ১০ হাজার টাকা করা হবে। ছাত্র-ছাত্রীদের যাতে বাবা মায়ের কাছে হাত না পাততে হয় সেজন্য তাদের একাউন্টে ১০ লাখ টাকা করে দেয়া হবে। পাশাপাশি তিনি রাজ্য সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের পরিষেবাগুলির কথা উল্লেখ করেন।
বিজেপি যদি বাইরের ভাড়া করা লোক নিয়ে বিশৃংখলা করতে আসে তাহলে মহিলাদের
ঝাঁটা, খুন্তি, ঝাড়ু নিয়ে প্রতিরোধ করতে বলেন। কাঁথির অধিকারী পরিবার কে নিশানা করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন তিনি এই মাসের ২৮ তারিখ থেকে মেদিনীপুরে থাকবেন এবং সবকিছু লক্ষ্য রাখবেন। মীর জাফরের দল
কিছু সুবিধা করতে পারবেন না বলে তিনি বলেন।
তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় এলে রেশন মানুষের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেয়া হবে বলে তিনি বলেন। বছরে দুবার দুয়ারে সরকার মানুষের পরিষেবা দেবে বলে তিনি বলেন।
বিজেপি সরকার দেশকে বিক্রি করে দিচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। লাভজনক সংস্থাকে বিক্রি করে সেই টাকা বিজেপি নেতারা লুট করছেন বলে মন্তব্য করেন মুখ্যমন্ত্রী।গ্যাস সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের মূল্য বৃদ্ধির কথা বলে বিজেপিকে কাঠগড়ায় তোলেন তিনি।
শেষমেষ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপিকে ফুটিয়ে খালি করে দেয়ার জন্য জনতার কাছে আবেদন করেন। জনতার উদ্দেশ্যে খেলা হবে বলেও তিনি বলেন।