দাঁতনে বিজেপি সভাপতি
ঘাটাল ওয়েব নিউজ ডেস্ক, ১৯ সেপ্টেম্বর : দাঁতনে বিজেপি সভাপতি আক্রান্ত কর্মীদের দেখতে গিয়ে মহিলাদের বিক্ষোভের মুখে। মাত্র কয়েক দিন আগেই পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথিতে আক্রান্ত হয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তার রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও হেনস্থা হলেন বিজেপির জেলা সভাপতি। বুধবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের দাঁতন থানার তরুরুই গ্রামে।
কয়েক দিন অাগেই রাজনৈতিক সংঘর্ষে আহত হয়েছিলেন বিজেপি কর্মীরা। দলীয় সমর্থকদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়লেন পশ্চিম মেদিনীপুরের বিজেপির জেলা সভাপতি শমিত কুমার দাস। গ্রামের মহিলারা রীতিমত ঝাঁটা, লাঠি হাতে তাঁকে রুখে দেন। কালো পতাকাও দেখান।
বিজেপির অভিযোগ, মহিলাদের পেছনে সশস্ত্র অবস্থায় ছিল শাসক দলের লোকেরাও। ঝাঁটা নিয়ে বিজেপি নেতা ও তাঁর দলীয় কর্মীদের গ্রামে ঢুকতে বাধা দেওয়া হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলেও গ্রামে আর ঢুকতে পারেননি বিজেপি নেতারা। ফিরে আসার সময় গাড়ির পেছন থেকেও হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ। যদিও পুলিশের বিরুদ্ধে নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলেছেন বিজেপির নেতৃত্বরা।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ১৪ তারিখ কৃষিতে ক্ষতিপূরণের ফর্ম বিলি নিয়ে দাঁতনের তররুই গ্রামে তৃণমূল বিজেপি কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এই ঘটনায় দুই পক্ষের ৬ থেক ৭ জন করে জখম হন। দাঁতন থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন দুই পক্ষই। সেই দিনের আক্রান্ত বিজেপি কর্মীদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে অাজ বুধবার বেলা ১১ টার সময় তারুরুই গ্রামে যান বিজেপির জেলা সভাপতি শমিতবাবু ও তাঁর দলবল। কিন্তু গ্রামবাসীদের দাবী, বিজেপি আসার পরেই তাঁদের এলাকায় অশান্তি তৈরি হয়েছে। তাই গ্রামে আর কোনও বিজেপি নেতাকর্মীদের ঢুকতে দেওয়া হবেনা বলে গ্রামবাসীদের দাবী। তাই বিজেপি নেতাদের গ্রামের মহিলারা অশান্তি এড়াতে ঢুকতে দেয়নি। বিজেপি সভাপতি সমিত দাশ বলেন, বিভিন্ন প্রকল্প পাইয়ে দেওয়ার নামে বিভ্রান্ত ছভিয়ে তৃণমূল এই ঘৃন্য রাজনীতি করছে। তৃণমূলের বিধায়কের নেতৃত্বেই এই ঘটনা করা হয়েছে। মানুষ সব বুঝতে পারছে। তৃণমূল অবশ্য এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বলেছে মানুষ অশান্তি চাই না তাই গ্রামবাসীরা বাঁধা দিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here