ঘাটাল নিউজ ওয়েব ডেস্ক : বাঙালির পূজো শুরু হল ভাদ্র সংক্রান্তিতে বিশ্বকর্মার হাত ধরে। বিশ্বকর্মা পুজোর সন্দ্ধিক্ষনে দাসপুর ২ নং ব্লকের পলাশপাই খালের উপর চকসুলতান সেতুর শুভ উদ্বোধন হল। দাসপুর-২ ব্লকের বেশ কয়েকটি গ্রামের বাসিন্দাদের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হল। গ্রামবাসীদের বহুদিনের দাবি ছিল পলাশপাই খালের উপর চকসুলতানে একটি সেতু তৈরির৷ সেই দাবী আজ পূর্ন হল। সোমবার আনুষ্ঠানিক ভাবে গ্রামবাসীদের জন্য খুলে গেল নতুন সেতুটির ৷ প্রায় ১৬০ ফুট লম্বা এবং সাত ফুট চওড়া ওই সেতুটির নাম রাখা হয়েছে কন্যাশ্রী৷ সেতুটি নির্মানের ফলে খালের দক্ষিনে চকসুলতান,গৌরা,শ্যামচক,শিমুলতলা, এবং অন্যদিকে থাকা জোতগোবিন্দ,সিংহচক, শয়লা, চককিশোর সহ কয়েকটি গ্রামের বাসিন্দাদের যোগাযোগের সমস্যা দূর হলো বলা যায় ৷বর্তমান সেতুটির জায়গায় বাঁশের সাঁকো ছিলো, যাতায়াত করলে দিতে হত পাঁচ টাকা করে কর৷ উৎপাদিত পন্যের রপ্তানীর জন্য ভ্যান, ট্রলি ও চার চাকার গাড়ি নিয়ে পারাপার করা যেতো না৷ খালে জল বাড়লে সমস্যায় পড়তে হতো স্কুল পড়ুয়াদের৷
রোগীদের নিয়ে যেতেও সমস্যায় পড়তে হতো গ্রামবাসীদের ৷ গোছাতি গ্রামপঞ্চায়েতের প্রধান প্রশান্তকুমার মাল জানান, গ্রামবাসীদের দীর্ঘ দিনের দাবি ছিল পাকার পোল তাই মান্যতা দিয়ে পঞ্চায়েত থেকে প্রায় ২০ লক্ষ টাকা দিয়ে এই কাঠের সেতু তৈরি করা হয়েছে৷ কংক্রিটের সেতু তৈরি করার মতো সামর্থ না থাকায় কাঠের সেতুই তৈরি করতে হয়েছে পঞ্চায়েতকে। এই সেতুর অানুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সেচমন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র৷ উদ্বোধন করে সৌমেনবাবু বলেন, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কন্যাশ্রী প্রকল্প বিশ্ববন্দিত৷ কন্যাশ্রী এখন রাজ্যের মডেল। গ্রামের মানুষরা কন্যাশ্রীর অনুপ্রেরণাতে অনুপ্রানিত হয়ে যোগাযোগকারী সেতুটির নাম কন্যাশ্রী রেখেছেন। এই সরকার মানুষের পাশে অাছে।
সৌমেনবাবু ছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দাসপুরের বিধায়ক মমতা ভুইঞ্যা, দাসপুর-২ ব্লক পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি প্রতিমা দোলুই, সহ সভাপতি অাশীষ হুতাইত প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here