পশ্চিম মেদিনীপুর, ১৩ ফেব্রুয়ারী : নাবালিকাকে তুলে নিয়ে গিয়ে বিয়ে করার অপরাধে গ্রেফতার করা হলো এক যুবককে। গত সোমবার হুগলি জেলার অারামবাগ থানার পান্ডু গ্রাম থেকে এক নাবালিকাকে তুলে নিয়ে এসে বিয়ে করেছে বলে অভিযোগ উঠলো মনসুকা গ্রামের এক যুবকের বিরুদ্ধে।অভিযুক্ত যুবক ভগীরথ সাউ তার দিদি ও জামাইবাবুকে সাথে করে নিয়ে গিয়ে এক নাবালিকাকে তুলে নিয়ে অাসে। ভগীরথের বাড়ি ঘাটাল থানার মনসুকা গ্রামে।গত সোমবার একটি মারুতি ভ্যান নিয়ে হুগলী জেলার পান্ডু গ্রামে যায়। ফোনে অালাপ মালা বাগ নামে একটি বছর ১৫ মেয়ের সাথে। দেখা করতে বলে অভিযুক্ত যুবক তখন নাবালিকা মেয়েটি তার বোনকে সাথে নিয়ে দেখা করতে এলে ,সেই সময় ভগীরথ তাকে বারবার বিয়ে করে নেওয়ার জন্য জোর করে। সে রাজি না হওয়ায় পকেট থেকে সিঁদূর বের করে তাকে পরিয়ে দেয়।তারপরেও সে যেতে না রাজি হওয়ায় তাকে জোর করে গাড়িতে তুলে নিয়ে চলে যায়।তার বোন চেঁচামেচি করায় তাকে ভয় দেখিয়ে মালাকে তুলে নিয়ে যায় বলে জানায় তার বোন কাঞ্চন বাগ। মালার মা অনিতা বাগের অভিযোগ, তার মেয়েকে জোর করে তুলে নিয়ে গিয়ে পালিয়ে যায় ঐ ছেলেটি। তারপর তারা খোঁজ নিয়ে ছেলেটির বাড়ি গেলে সেখানে তাদের আটকে রাখা হয়। তারপর তারা চাইল্ডলাইনে খবর দিলে তারা পুলিশকে নিয়ে এসে উদ্ধার করে তাদের। এরপরই মালার মা অনিতা বাগ থানায় অভিযোগ করেন ঘাটাল থানায়। ঘাটাল থানা অভিযোগ পেয়ে ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে। অভিযুক্ত ভগীরথ সাউ, তার জামাইবাবু নিত্যানন্দ হাজরা, ঘটক শুভজিত। আজ তাদের ঘাটাল আদালতে তোলা হলে বিচারক তাদের ১৪ দিনের জেল হেফাজত দেন ও নাবালিকাকে ৩ দিন হোমে রাখার নির্দেশ দেন। স্থানীয় সূত্রে জানা যায় ভগীরথ ও মালার কিছুদিন ধরেই সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল সেই সম্পর্ক স্থায়ী করার জন্য সোনার কারিগর ভগীরথ এটা করেছে। নাবালিকাকে বিয়ে করলে শ্রীঘরে যেতে হবে এটা কল্পনাও করতে পারেনি ভগীরথ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here