ঘাটাল নিউজ ডেস্ক,

২৫ ফেব্রুয়ারি বিকেলে চন্দ্রকোনা টাউন দড়বড়ি মাঠে ঘাটাল মহকুমা আইনি পরিষেবা কর্তৃপক্ষের তত্বাবধানে আয়োজিত একটি আইনি সচেতনতা শিবির অনুষ্ঠিত হল।
উপস্থিত ছিলেন ঘাটাল মহুকুমা আদালতের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ও চেয়ারম্যান ঘাটাল মহুকুমা আইনি পরিষেবা কর্তৃপক্ষের দিলীপ কুমার দাস। এছাড়াও ছিলেন চন্দ্রকোনা – ২ নম্বর ব্লকের সমষ্টি উন্নয়ন অধিকারীক সৌম্য ঘোষ , চন্দ্রকোনা মহাবিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষা সুমিতা মল্লিক, ঘাটাল মহকুমা অাদালতের ক্রিমিনাল কোর্টের অাইনজীবি চিত্ত কর্মকার, অাইনজীবি দেবাশীষ পালধি এবং আইনজীবি ও বিবাহ নিবন্ধন আধিকারিক সমীর ঘোষ প্রমুখ। বহু মানুষের উপস্থিতিতে এই আইনি সচেতনতা শিবিরে মানুষের সমস্যা নিয়ে দীর্ঘক্ষন আলোচনা হয়।
ঘাটাল ক্রিমিনাল কোর্টে র পিপি চিত্ত কর্মকার বলেন, আইনি পরিষেবা শিবির থেকেই পরামর্শ পাওয়া যাবে যে ,কোনো সমস্যার সমাধান হবে কিনা। যদি সমস্যার সমাধান না হয় তাহলে সম্পূর্ণ বিনা পয়সায় আদালতে পরিষেবা পাবেন তপশিলি জাতি, উপজাতি মহিলা এবং দৈহিক প্রতিবন্ধীরা। ঘাটাল মহকুমা দায়রা অাদালতের বিচারক ও ঘাটাল মহকুমা অাইনি সচেতনতা কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান দিলীপ দাস জানান, বিচারককে মানুষের দরজায় নিয়ে যাওয়া যায় কিনা এ নিয়ে চিন্তা ভাবনা স্বাধীনতার বেশ কয়েক বছর পরে শুরু হয়।১৯৮৭ সালে আইন মত আমরা আপনাদের কাছে সচেতনতা শিবিরে এসেছি। কারা কারা এই আইনি পরিষেবা পেতে পারেন তার বারোটা ক্যাটেগরি আছে এ বিষয়ে বিশদ ভাবে জানান।
তিনি আরো বলেন যাদের আইনি লড়াই করার মতো অর্থ নেই তারা এই আইনি পরিষেবা পেতে পারেন ।এমনকি অফিস খুঁজে না পেলে প্রতিটি ব্লকে প্যারালিগাল ভলেন্টিয়ার আছেন তারা সহায়তা করবেন। কাগজ-কলমের পয়সাও খরচ হবে না।