”ভারত কী মন কী বাত, কার্যকর্তা কী সাথ” অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ঝাড়গ্রামে ভারতী ঘোষ

ঝাড়গ্রাম- দোরগোড়ায় লোকসভা ভোট। তার আগে বৃহস্পতিবার দেশের এক কোটি বুথ স্তরের বিজেপি কর্মীকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বার্তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বিশ্বের বৃহত্তম এই ভিডিও কনফারেন্সে ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনা নিয়ে মোদী বলেন, “এক হয়ে লড়বে ভারত। জিতবেও ঐক্যবদ্ধ ভাবে।” শাসক দলের সঙ্গে বিবাদের পাশাপাশি একাধিক মামলার জেরে দীর্ঘদিন নিজের চেনা জগৎ ছেড়ে ভিন রাজ্যে পাড়ি জমিয়েছিলেন প্রাক্তন আইপিএস ভারতী ঘোষ। তবে সবকিছুকে তুড়ি মেরে অবশেষে তিনি আবারও নিজের চেনা ছন্দে ফিরলেন। তবে এবার আর পুলিশের পোশাকে নয়, এলেন তিনি কেন্দ্রের ক্ষমতাসীন বিজেপির নেত্রী হিসেবে। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে তাঁকে চাইলেও গ্রেফতার করতে পারবে না এই রাজ্যের পুলিশ ।যেখানে মাত্র কিছুদিন আগেও তিনি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পুলিশ সুপার হিসেবে দাপটের সঙ্গে কাজ করেছেন। তবে নিজের পুরানো অতীতকে আর মনে করতে চাইছেন না ভারতী। বৃহস্পতিবার তিনি ঝাড়গ্রামে এসেছেন প্রধানমন্ত্রীর “ভারত কী মন কী বাত, কার্যকর্তা কী সাথ” অনুষ্ঠানে যোগ দিতে। কৈলাস বিজয়বর্গী’র সঙ্গে তিনি এই অনুষ্ঠানে থাকছেন। প্রধানমন্ত্রী দেশের নেতানেত্রীদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলার যে কর্মসূচী নিয়েছেন তেমনই একটি কর্মসূচীতে ঝাড়গ্রামের নেতা নেত্রীদের সঙ্গে তিনিও যোগ দিয়েছেন।কৈলাশ বিজয়বর্গীয় জানান ঝাড়গ্রাম আসনের উপর আমরা বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছি। ভারতী ঘোষ দীর্ঘদিন ঝাড়গ্রামে কাজ করেছেন। উনি আমাদের দলে যোগ দিয়েছেন। উনি ঝাড়গ্রাম থেকে দলের কাজ শুরু করতে চেয়েছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here