সিআইডির ম্যারাথন জেরায় কাহিল হয়ে পড়ছেন বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষ | জেলার প্রাক্তন পুলিশ সুপারের বিরুদ্ধে সোনা প্রতারনা মামলা সহ একাধিক মামলা রয়েছে | পরপর সিআইডির জেরায় মুষড়ে পড়েছেন তিনি | তাই এখন রাজ্য নেতৃত্বের স্মরনাপন্ন হয়েছেন তাঁকে উদ্ধার করার জন্য | জেরায় সন্তুষ্ট না হওয়ায় আগাম নোটিশ দিয়ে শুক্রবারের পর সোমবারও তাঁকে জেরা করে সিআইডি |
তাঁর অস্থায়ী ঠিকানায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সিআইডির ডেপুটি সুপার শঙ্কর ভট্টাচার্য নোটিশ পাঠান | সেই নোটিশে লেখা ছিল সোমবার সিআইডির দল তাঁকে জেরা করতে আসবে | সেইমতো এদিন সকাল ১০ টা নাগাদ সিআইডির স্পেশাল সুরিন্টেন্ডেন্ট ইন্দ্রনারায়ণ চক্রবর্তী ও এক ডেপুটি সুপারের ( মহিলা আইপিএস ) নেতৃত্বে ১৬ জনের দল দাসপুরের বাড়িতে আসেন | সকাল সাড়ে ১০ টা থেকে দফায় দফায় জেরা শুরু হয় | পুরো জেরা পর্ব ক্যামেরাবন্দি করা হয় সিআইডির পক্ষ থেকে | সন্ধ্যে পর্যন্ত জেরা চলে | তদন্তকারী সিআইডি আধিকারিকরা বেরানোর সময় সাংবাদিকদের সামনে এবিষয়ে মুখ খুলতে চাননি | তবে আভাস মিলেছে পুনরায় তাঁরা আসতে পারেন |

এদিন বিকেলেই ভারতী ঘোষের অস্থায়ী বাড়িতে চলে আসেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু | সিআইডির দল বেরিয়ে যাওয়ার পর প্রার্থীকে পাশে বসিয়ে তিনি বলেন , ‘ সিইআইডি জেরার নামে তাঁর প্রচার বন্ধ করতে চাইছে | তাঁরা বিষয়টি নিয়ে নির্বাচন কমিশন ও সুপ্রিম কোর্টে যাবেন | জানতে চাইবেন জেনে বুঝেই একজন প্রার্থীকে আটকাতে চাইছে রাজ্যের সিআইডি | ‘
ভারতী দিনভর সিআইডির জেরার মুখে বসলেও তাঁর প্রচার যে আটকে নেই সে কথা স্বীকার করে সায়ন্তন বলেন , ‘ ভারতীর হয়ে দল প্রচার চালাবে | কার্যকরতা গ্রামে গ্রামে গিয়ে মানুষকে বলবেন , বিজেপি প্রার্থীকে ঠেকাতে সিআইডি পাঠিয়ে হেনস্তা করছে রাজ্য সরকার | ‘

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here