ঘাটাল নিউজ ওয়েব ডেস্ক,১০ সেপ্টেম্বর:
‘বেদের মেয়ে জোসনা’ এমন একটা চলচ্চিত্র যা ৯০ দশকের বাংলা সিনেমায় সাফল্যের অন্যতম মাইলস্টোন। ছবিতে নায়ক চিরঞ্জিতের বিপরীতে অভিনয় দিয়ে পুরো দেশ কাঁপিয়েছিলেন যে অভিনেত্রী, তিনিই অঞ্জু ঘোষ।

বাংলা চলচ্চিত্রে ইতিহাসে সফল ছবিগুলোর মধ্যে শীর্ষে ছিলেন এই ছবির নায়িকা। দীর্ঘ সময় অভিনেত্রী অঞ্জু ঘোষ এখন বাংলাদেশে অভিনয়ে নেই। হয়তো অনেকেই তাঁকে ভুলেও গেছেন।
চলচ্চিত্রে আসার আগে তিনি চট্টগ্রামের মঞ্চে বাণিজ্যিক নাটকের অভিনেত্রী হিসেবে পরিচিত ছিলেন। তার আসল নাম অঞ্জলি ঘোষ। রুপোলি পর্দায় তাঁর নাম হয় অঞ্জু ।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার আগে অঞ্জু ঘোষ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ভোলানাথ অপেরার হয়ে যাত্রায় নৃত্য পরিবেশন করতেন ও গান গাইতেন। ১৯৮২ সালে এফ কবীর চৌধুরী পরিচালিত ‘সওদাগর’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে।

এই ছবিটি ব্যবসায়িকভাবে সফল হয়েছিল। তিনি বাংলা ইন্ডাস্ট্রিতে নীলো ডাক নামে পরিচিত ছিলেন। আর বেদের মেয়ে জোসনা ছবিতে অভিনয় করে তিনি রাতারাতি তারকা বনে যান।

১৯৮৬ সালে অঞ্জুর ক্যারিয়ার বিপর্যয়ের মুখে পড়লেও ফিরে আসেন ভালোভাবে।

১৯৮৭ সালে তিনি সর্বাধিক ১৪টি সিনেমাতে অভিনয় করেন, মন্দার সময়ে যেগুলো ছিল সফল ছবি। তার অভিনীত ‘বেদের মেয়ে জোসনা’ অবিশ্বাস্য রকমের ব্যবসা করে এবং সৃষ্টি করে নতুন রেকর্ড। তিনি সুঅভিনেত্রীও ছিলেন।
১৯৯১ সালে বাংলা চলচ্চিত্রে নতুন তারকার আগমনে শাবনাজদের মতো নায়িকাদের দাপটে অঞ্জু ঘোষ ব্যর্থ হতে থাকেন। ১৯৯৬ সালে অর্থাৎ দীর্ঘ ২২ বছর আগে বাংলাদেশ ছাড়েন। তখন থেকেই কলকাতায় বসবাস করছেন এই নায়িকা। কলকাতার চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে থাকেন। বর্তমানে তিনি ভারতে বিশ্বভারতী অপেরায় যাত্রাপালায় অভিনয় করছেন।

জানা গেছে, বেশ কিছু পরিকল্পনা নিয়েই অঞ্জু ঘোষের এবারের এই ঢাকা সফর। চমক হিসেবে নতুন কোনো ছবিতে অভিনয়ের ঘোষণা আসতে পারে। ঢাকায় ছবি ইন্ডাস্ট্রিতে সিনেমা প্রযোজনা করবেন বলেও শোনা যাচ্ছে এই তারকা।

এখন বাংলাদেশের দর্শকরা তাঁর এই প্রত্যাবর্তনকে কতটা গ্রহন করে, সেটাই দেখার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here